সৌদি কাতারের সঙ্গে বিরোধ নিষ্পত্তির পথ খুঁজছে

ইজাব টিভি আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব বলছে, তারা কাতারের সঙ্গে বিরোধ নিষ্পত্তির পথ খুঁজছে। সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ বলেছেন, প্রতিবেশী কাতারের সঙ্গে তিন বছর ধরে যে বিরোধ চলছে তা সমাধানের পথ খুঁজছে রিয়াদ।

শনিবার (২১ নভেম্বর) দু’দেশের মধ্যকার বিরোধ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ বলেন, কাতারের ওপর যে অবরোধ আরোপ করা হয়েছে তা শেষ করতে সৌদি একটি উপযুক্ত উপায় খুঁজে যাচ্ছে। কিন্তু নিরাপত্তার প্রশ্নে এটি শর্তাধীন থেকে যাচ্ছে।

২০১৭ সালে সৌদিসহ চার আরব দেশ কাতারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। সে সময় সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন এবং ইরানের সঙ্গে সুসম্পর্ক রাখার অভিযোগে কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে সৌদি আরব, বাহরাইন, মিসর এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত। কাতারের ওপর স্থল, জল এবং আকাশপথেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। যদিও নিজেদের ওপর আসা সব ধরনের অভিযোগই অস্বীকার করে আসছে কাতার।

গত মাসেও কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকের পথ খুঁজে বের করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রিন্স ফয়সাল। তিনি বলেন, আমরা আমাদের কাতারি ভাইদের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে চাই।

গত সপ্তাহে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুল রাহমান আল থানি বলেন, উপসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যে সংকট তৈরি করে কেউ জয়ী হতে পারবে না। তিনি বলেন, তার দেশ আশা করছে যে কোনো সময় এই অবস্থার সমাপ্তি ঘটবে। তবে নিরাপত্তা নিয়ে চার আরব দেশের আইনসঙ্গত উদ্বেগের সমাধান করা দরকার বলে মনে করেন প্রিন্স ফয়সাল। তিনি বলেন, আমি মনে করি অদূর ভবিষ্যতে সমাধানের পথও খোলা রয়েছে। আর যে কারণে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, সেই নিরাপত্তা উদ্বেগের সমাধান খুঁজে পেলে তা হবে গোটা অঞ্চলটির জন্য সুসংবাদ।

অপরদিকে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, আমরা একটা সমাধান খোঁজার বিষয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমরা কাতারি ভাইদের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী। আশা করছি, তারাও আলোচনায় বসার বিষয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’ অবরোধ আরোপকারী দেশগুলো দোহার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে মদদ ছাড়াও বছরের পর বছর ধরে তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুলেছিল।