বাংলাদেশে অনেক সমর্থক আছে আমাদের: বাবর আজম

ইজাব টিভি ডেস্কঃ বাংলাদেশে একটা সময় পাকিস্তান ক্রিকেটের ভক্তের সংখ্যা ছিল অনেক বেশি। তবে বিশ্ব ক্রিকেটে বাংলাদেশের উত্থানের পর সে সংখ্যায় ঘাটতি পরিলক্ষিত হয়। তখন নিজ দেশের ক্রিকেট নিয়েই উন্মাদনা ব্যস্ত থাকে তারা। আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

বৃহস্পতিবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। যেখানে তিনি বলেন, এখানেও (বাংলাদেশ) আমাদের অনেক সমর্থক আছে। আর সেটা কী কারণে বলেছেন, তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘যখনই আমরা অনুশীলন করতে গিয়েছি, পুরো পথে লোক দাঁড়িয়ে থেকেছে, আমাদের চিয়ার আপ করেছে, হাত নাড়িয়েছে। আমার তাই মনে হয়, বাংলাদেশের পাশাপাশি আমাদেরও অনেক সমর্থক আছে এখানে। অনুশীলনের সময়ও সেখানে লোকে আমাদের দেখেছে, চিয়ার আপ করেছে। কোভিডের পর এখানে প্রথমবার দর্শক প্রবেশের অনুমতি মিলেছে, এটা দারুণ ব্যাপার। ক্রিকেটার হিসেবে, দল হিসেবে আমরা উপভোগ করব এবং বাংলাদেশে আমরা যখনই এসেছি, দর্শক সবসময় আমাদের চিয়ার আপ করেছে। শুধু নিজেদের দলই নয়, পাকিস্তান দলকেও ওরা সমর্থন করেছে বেশ। এটা আমাদের বেশ ভালো লাগে এবং সহায়তাও করে।

বাংলাদেশ দলে নেই বেশকজন সিনিয়র ক্রিকেটার। যেমন সাকিব-তামিম মুশফিক। এটা পাকিস্তানের জন্য সুবিধার কি না। এমন প্রশ্নে বাবর আজম বলেন, ‘বিশ্বকাপ থেকে যে মোমেন্টাম চলছে আমাদের, তা ধরে রাখতে চাইছি। এখানে ভিন্ন কম্বিনেশন খেলানোর চেষ্টা করছি, নিজেদের শক্তির জায়গা বাজিয়ে দেখতে চাই। এরপর আমাদের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজও আছে। ৬ ম্যাচে বিভিন্ন ক্রিকেটারকে দেখব আমরা। যে মোমেন্টাম আমরা পেয়েছি, যে ব্যাপারটি দেখা গেছে, তা পুরোপুরি উপেক্ষা করা যাবে না। মূল ক্রিকেটারদের বসিয়ে রাখা যাবে না। কারণ এরপর টেস্ট সিরিজও আছে। তাছাড়া এটা ওদের হোম সিরিজ। কাজেই ওদেরকে হালকাভাবে নেয়া যাবে না। কয়েকজন ক্রিকেটার নেই, তবে যারা আছে, তারাও কম নয়। বিপিএল খেলে ওরা সবাই। ওদেরকে সহজভাবে নেয়ার সুযোগ নেই। বাংলাদেশের পিচের জন্য প্রস্তুতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বেশ ভালো প্রস্তুতি চলছে। যতটা সময় মিলেছে, কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা চলছে। দু-একদিন বৃষ্টি হওয়ায় প্রস্তুতিতে ব্যাঘাত ঘটেছে বটে। তবে যতটা সময় মিলেছে, আমরা কাজে লাগিয়েছি। আত্মবিশ্বাস দারুণ দলের। মোমেন্টাম আছে আমাদের। নিজেদের শক্তির জায়গায় থাকব এবং বিশ্বকাপে যে ধরনের ক্রিকেট খেলেছে, সেটিই ধরে রাখার চেষ্টা করব।